বলিউড যেসব অভিনেত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে !

পৃথিবীর চিরাচরিত নিয়ম মৃত্যু, জন্মিলে একদিন মরিতে হবেই। সেটা হোক সাধারণ আর হোক তারকা।

তবে স্বাভাবিক মৃত্যুটাই সবার কাম্য। কিন্তু অনেক সময় এর ব্যতয় ঘটে। তখনই ওই মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে দানা বাঁধে রহস্য। এমনই কয়েকজন নায়িকার রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে বলিউডে, যা পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল-

১. মধুবালা:
১৯৬৯ সালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় বলিউডের বিখ্যাত অভিনেত্রী মধুবালার। ৩৬ বছর বয়সেই মহাপ্রস্থান হয় তাঁর। শেষ ক’টা দিন একেবারে একা হয়ে পড়েছিলেন। দিলীপ কুমারের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক পরিণতি পায়নি। এমনকি মৃত্যুর পরে যে কবরে তিনি শায়িত ছিলেন সেখান থেকেও তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

২. মীনা কুমারী :
জীবনের সেরা ছবি পাকিজা মুক্তির তিন সপ্তাহ পরে মৃত্যু হয় মীনা কুমারীর।
মাত্র ৩৯ বছর বয়সে সিরোসিস অব লিভারে‌ আক্রান্ত হয়ে মারা যান অভিনেত্রী। শোনা যায়, প্রচুর মদ খেতেন। সে কারণে লিভারে প্রভাব পড়ে।

৩. দিব্যা ভারতী :
১৯৯৩ সালে মুম্বাইয়ের নিজের ফ্ল্যাট থেকে নিচে পড়ে যান দিব্যা ভারতী। মাত্র ১৯ বছর বয়সে মৃত্যু হয় বলিউডের এই উঠতি তারকার। তবে সংবাদমাধ্যমে দিব্যার মৃত্যু নিয়ে দ্বিমত আছে। দিব্যার মৃত্যুটি দুর্ঘটনা না পরিকল্পনা করে খুন, তা আজো জানা যায়নি।

৪. জিয়া খান :
২০১৩ সালে মৃত্যু হয় জিয়ার। রেখে যান একটি সুইসাইড নোট। যার ওপর ভিত্তি করে পুলিশ আদিত্য পাঞ্চোলির ছেলে সুরজ পাঞ্চোলিকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। জিয়ার মায়ের অভিযোগ, খুন করা হয়েছে তাঁর কন্যাকে।

৫. পারভিন ববি :
পরভিন ববির দেহ ২০০৫ সালে তাঁর ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। ঠিক কী কারণে তাঁর মৃত্যু তা আজো অজানা। আত্মহত্যা করেছিলেন নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছিল তাঁর, সে নিয়ে দানা বেঁধেছিল সন্দেহ। হতাশার কারণে অভিনেত্রী আত্মহত্যা করেছিলেন বলে মনে করেন অনেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Pin It on Pinterest